• শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:৫১ অপরাহ্ন
Headline
আম্বিয়া খাতুন মেমোরিয়াল স্কুল বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ইউনিক এডুকেয়ার হাইস্কুলের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও দোয়া মোনাজাতের মাধ‌্যমে শেষ হলো দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা ক্ষমতার অপব্যবহার করে দীর্ঘ দিন যাবত একই কর্মস্থলে গাজীপুর সদরের শিক্ষা অফিসার শামীম আহম্মেদ গাজীপুর সাংবাদিক ঐক্য ফোরামের আহবায়ক কমিটি গঠন গাজীপুর কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশনের হাজী মুছা সভাপতি, ইসমাঈল মাস্টার সম্পাদক নির্বাচিত এই বিজয় জনগণের বিজয়: শেখ হাসিনা অবাধ-স্বচ্ছ ও উৎসবমুখর নির্বাচন হয়েছে, জানালেন বিদেশি পর্যবেক্ষকরা বিলুপ্তির পথে তাঁতশিল্প, হুমকির মুখে ব্যবসায়ীরা এই নির্বাচন দেশের গণতান্ত্রিক অভিযাত্রায় মাইলফলক হয়ে থাকবে: কাদের

অবাধ-স্বচ্ছ ও উৎসবমুখর নির্বাচন হয়েছে, জানালেন বিদেশি পর্যবেক্ষকরা

রিপোর্টারের নাম / ৩৯ টাইম:
আপডেট: সোমবার, ৮ জানুয়ারী, ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক :
বাংলাদেশের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবাধ, স্বচ্ছ ও উৎসবমুখর হয়েছে বলে জানিয়েছেন ভারতসহ নয়টি দেশের নির্বাচনী পর্যবেক্ষক দল। আজ সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ বিষয়ক সংবাদ সম্মেলনে তারা এ কথা জানান। সংবাদ সম্মেলনে শ্রীলঙ্কার সংসদ সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী এবং দেশটির মুসলিম কংগ্রেসের ডেপুটি চিফ সৈয়দ আলী জহির বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করতে আমরা যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জাপান, ইরাক, থাইল্যান্ড, শ্রীলঙ্কা, ভারত, নেপাল এবং মালদ্বীপ থেকে এসেছি। আমরা ৫ জানুয়ারি বাংলাদেশে এসে প্রাক-নির্বাচন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেছি। ৭ জানুয়ারি নির্বাচনের দিন আমরা খুব সকালে পরিদর্শন শুরু করি। ঢাকা শহরের আশপাশে প্রায় ৩০টি ভোটকেন্দ্র ঘুরেছি আমরা। সৈয়দ আলী জহির বলেন, বাংলাদেশে আসার পরই আমরা জানতে পারি যে, নির্বাচন বিরোধীরা ঢাকায় একটি ট্রেনে আগুন দিয়েছে। ভোটকেন্দ্র ভাঙচুর, আগুন লাগানোর কিছু খবরও আমরা শুনেছি। আমরা এই ধরনের কার্যকলাপের জন্য তীব্র নিন্দা জানাই। যারা এই ধরনের সহিংস ও ভাঙচুরের সঙ্গে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনকেও দৃঢ় পদক্ষেপ নিতে বলি। আমরা বিশ্বাস করি, বাংলাদেশ সরকার গণতন্ত্র, আইনের শাসন এবং মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছে। আমাদের দৃষ্টিকোণ থেকে সরকার জনগণের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থান। তিনি আরও বলেন, আমরা আগেই বলেছি, ৫ জানুয়ারি থেকে গতকাল (গত রোববার) পর্যন্ত আমরা দেখেছি বাংলাদেশের মানুষ নির্বাচনের ব্যাপারে খুবই আন্তরিক। সাধারণ মানুষের ভোটদানে অনেক আগ্রহ ও উদ্দীপনা রয়েছে, যা সত্যিই প্রশংসনীয়। আমরা লক্ষ্য করেছি, সকাল থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে বিকেল ৪টায় শেষ হয়েছে। আমরা মানুষকে লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট দিতে দেখেছি। এর মধ্যে নারী ও নতুন ভোটারদের উপস্থিতি আমাদের চোখে পড়েছে। তিনি বলেন, সব কেন্দ্রের ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে ভোট দিতে তারা কোনো বাধার সম্মুখীন হননি। নির্বাচনে প্রার্থী বা দল দ্বারা ভোটারদের কোনো ভয়ভীতি প্রদর্শনও দেখা যায়নি। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন কলকাতা প্রেস ক্লাবের সভাপতি স্নেহাশিস সূর, এশিয়া টাইমসের বিশেষ প্রতিবেদক জাভিয়ের পিয়েদরা, কনজারভেশন কমনওয়েলথ অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান এমানুয়েল ফিনদোরো-ওবাসি, আফ্রিকা হাউজ লন্ডনের পরিচালক রিচার্ড সেমেতিগো, আইডিসিও’র সভাপতি জুন শিনদো, মালদ্বীপ নির্বাচন কমিশনের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট আমজাদ মুশতাফা, এডিইএল’র ভাইস চেয়ারম্যান ইব্রাহিম আইদ মোহামেদ, নেপাল মুসলিম কমিশনের সভাপতি সামিম মিয়া আনসারি ও সদস্য মোহামেদিন আলী, থাইল্যান্ডের মানবাধিকার কর্মী জুরপাস পিথাকসেকাথারন ও ইরাকের মানবাধিকার কর্মী তালার মাহমুদ কারীম।
এদিকে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন শান্তিপূর্ণ ও সাধারণ মানুষের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন পর্যবেক্ষণে থাকা সাতটি দেশের পর্যবেক্ষকরা। গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে একথা জানান তারা। এ সময় পর্যবেক্ষক দলের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতির সাবেক উপ-সহকারী ও হোয়াইট হাউস এনএসসি এর চিফ অফ স্টাফ এবং আমেরিকান গ্লোবাল স্ট্র্যাটেজিস (এজিএস) এর সিইও আলেকজান্ডার বার্টন গ্রে। সংবাদ সম্মেলনে গ্রে বলেন, আমরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ সাতটি দেশের উচ্চ পর্যায়ের রাজনৈতিক বিশ্লেষক, প্রাক্তন কংগ্রেসম্যান এবং সাংবাদিকদের একটি দল। আমরা বাংলাদেশের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করেছি। গতকাল (গত রোববার) আমরা ৩টি দলে বিভক্ত হয়ে ঢাকা ও আশপাশের এলাকার ২০টি ভোটকেন্দ্র পর্যবেক্ষণ করেছি। তিনি বলেন, আমরা গত ৫ জানুয়ারি বাংলাদেশে এসেছি এবং গতকাল (গত রোববার) পর্যন্ত আমরা বাংলাদেশের মানুষকে দেখেছি তাদের ভোটাধিকারের ব্যাপারে খুবই আন্তরিক যা পৃথিবীর অন্য দেশে খুব কমই পাওয়া যায়। বিশ্বের অনেক দেশ আছে যারা ভোট না দেওয়ার জন্য জরিমানা আরোপ করে এবং অনেক দেশ আছে ভোট দিতে উৎসাহিত করার জন্য অতিরিক্ত নাগরিকত্ব সুবিধা প্রদান করা হয়। কিন্তু বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের ভোট দেওয়ার আগ্রহ ও উৎসাহ রয়েছে যা আমরা খুবই উৎসাহব্যঞ্জক বলে মনে করি। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতো যুক্তরাষ্ট্রের মানুষও বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে বেশ আগ্রহী তারা বাংলাদেশের উন্নয়ন সহযোগী উল্লেখ করে গ্রে বলেন, সবাই বাংলাদেশে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন আশা করেছে। আমরা দেখেছি যে গতকাল (গত রোববার) সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে বিকাল ৪টায় শেষ হয়েছে। বাংলাদেশের ভোট প্রক্রিয়া বিশ্বের অনেক দেশের মতই। গ্রে বলেন, কিছু রাজনৈতিক দল নির্বাচন থেকে বিরত থাকা এবং একটি প্রধান রাজনৈতিক দলের নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করায় ভোটের উৎসবমুখর পরিবেশে কিছুটা প্রভাব পড়েছে বলে মনে করছে পর্যবেক্ষক দলটি। যদি সব রাজনৈতিক, দলগুলো নির্বাচনে অংশগ্রহণ করলে পরিবেশ আরও সুন্দর ও আনন্দময় হতো। আমরা যেসব কেন্দ্র পর্যবেক্ষণ করেছি সেখানে ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে আমরা দেখেছি, তারা ভোট দিতে যেয়ে কোনো বাধার সম্মুখীন হননি। অংশগ্রহণকারী প্রার্থী বা দল দ্বারা ভোটারদের কোনো ভয় দেখানো হয়নি। নির্বাচনে এটা গণতন্ত্র ও ভোটাধিকারের জন্য ভালো ইঙ্গিত দেয়। তিনি বলেন, আমরা কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনার কথা শুনেছি। যেটি অপ্রত্যাশিত। কিন্তু সার্বিক পর্যালোচনা করলে নির্বাচনী পরিস্থিতিতে সেসব ঘটনা খুবই নগণ্য। সব ধরনের পরিস্থিতি বিবেচনা করে এখানে উপস্থিত সব পর্যবেক্ষক একমত যে বাংলাদেশের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে এবং সাধারণ মানুষের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সময় যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক কংগ্রেসম্যান ও সানডিগো সিটির কাউন্সিলম্যান জিম বেটস, অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলস লেজিসলেটিভ কাউন্সিলের সাবেক পার্লামেন্ট মেম্বার শাওকেট মুলেনমানে, যুক্তরায্য থেকে আসা ইউরোপিয়ান বাংলাদেশ ইকনোমিক ফোরামের কমিউনিকেশন ডিরেক্টর ক্রিস্টোফার জন ব্লাকবার্ন, আয়ারল্যান্ড থেকে আসা ইইউ রিপোর্টার এর পলিটিক্যাল এডিটর নিকোলাস হু পয়েল, জার্মানির জিবিপি ইন্টারন্যাশনাল এর সিইও ভলকার উয়ে ফ্রেডরিখ, নরওয়ে থেকে আসা ওয়ার্ল্ড পিচ অর্গানাইজেশন এর প্রেসিডেন্ট অ্যান্ডার্স নিলস হেনরি, ইব্রাকি প্রিফেকচারাল অ্যাসেম্বলি জাপারে প্রাক্তন সদস্য ইয়োশিহিরো আইডিই উপস্থিত ছিলেন। এ সময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন পর্যবেক্ষকরা। তারা জানান, বাংলাদেশে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সাধারণ মানুষ কোনো বাধা ছাড়াই ভোট দিতে পেরেছে। তারা কোথাও কোনো সহিংসতা দেখেননি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো নিউজ
https://slotbet.online/