• শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:৪৮ অপরাহ্ন
Headline
আম্বিয়া খাতুন মেমোরিয়াল স্কুল বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ইউনিক এডুকেয়ার হাইস্কুলের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও দোয়া মোনাজাতের মাধ‌্যমে শেষ হলো দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা ক্ষমতার অপব্যবহার করে দীর্ঘ দিন যাবত একই কর্মস্থলে গাজীপুর সদরের শিক্ষা অফিসার শামীম আহম্মেদ গাজীপুর সাংবাদিক ঐক্য ফোরামের আহবায়ক কমিটি গঠন গাজীপুর কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশনের হাজী মুছা সভাপতি, ইসমাঈল মাস্টার সম্পাদক নির্বাচিত এই বিজয় জনগণের বিজয়: শেখ হাসিনা অবাধ-স্বচ্ছ ও উৎসবমুখর নির্বাচন হয়েছে, জানালেন বিদেশি পর্যবেক্ষকরা বিলুপ্তির পথে তাঁতশিল্প, হুমকির মুখে ব্যবসায়ীরা এই নির্বাচন দেশের গণতান্ত্রিক অভিযাত্রায় মাইলফলক হয়ে থাকবে: কাদের

এই নির্বাচন দেশের গণতান্ত্রিক অভিযাত্রায় মাইলফলক হয়ে থাকবে: কাদের

রিপোর্টারের নাম / ৩২ টাইম:
আপডেট: সোমবার, ৮ জানুয়ারী, ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক :
দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন দেশের গণতান্ত্রিক অভিযাত্রায় মাইলফলক হয়ে থাকবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। আজ সোমবার দুপুরে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। ইশতেহারে দেওয়া ওয়াদা আওয়ামী লীগ অক্ষরে অক্ষরে বাস্তবায়ন করবে বলেও জানান তিনি। ওবায়দুল কাদের বলেন, এ নির্বাচন দেশের গণতান্ত্রিক অভিযাত্রায় মাইলফলক হয়ে থাকবে। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জনগণের দেওয়া রায়ের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে দেশ পরিচালনা করবে। তিনি বলেন, আমাদের ইশতেহারে দেওয়া ওয়াদা অক্ষরে অক্ষরে বাস্তবায়ন করব। আগামীর বাংলাদেশ হবে স্মার্ট ও সমৃদ্ধ। কাদের বলেন, বিএনপি-জামায়াত এবারও ব্যর্থ হয়েছে। বারবার নির্বাচন বর্জন করে তারা। আগামী পাঁচ বছর অপেক্ষা করা ছাড়া তাদের করণীয় নেই। আজ তাদের সব অভিযোগ বাস্তবতাবিবর্জিত, ভিত্তিহীন। তারা সংবাদ সম্মেলন করে মিথ্যাচার করেছে। প্রতিনিয়ত এমন মিথ্যাচার তাদের করুণ পরিণতির জন্য দায়ী। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, টানা চতুর্থবার ও পঞ্চমবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন শেখ হাসিনা। ভারত, রাশিয়া, চীন, ফিলিপাইন, সিঙ্গাপুর ও শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রদূতরা সাক্ষাৎ করে অভিনন্দন জানিয়েছেন। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২২৩টি আসনে জয় নিয়ে বড় ব্যবধানে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করেছে আওয়ামী লীগ। তবে নির্বাচনে অংশ নেওয়া দলগুলোর মধ্যে বর্তমান বিরোধী দল জাতীয় পার্টি পেয়েছে মাত্র ১১টি আসন। অন্য দিকে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আসন পেয়েছেন স্বতন্ত্রপ্রার্থীরা। সারা দেশে ৬২টি আসনে জয় পেয়েছে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। তবে তাদের অধিকাংশই আওয়ামী লীগের নেতা। তাই প্রশ্ন উঠেছে, দ্বাদশ জাতীয় সংসদের বিরোধী দল কারা হচ্ছেন। এ নিয়ে জানতে চাইলে নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচনের রেজাল্ট অফিশিয়ালি ঘোষণা হওয়ার পর বিরোধী দল কারা, অলরেডি বিরোধী দল জাতীয় পার্টির তো অনেকেই জিতেছেন, চৌদ্দ দলেরও দুজনের মতো জিতেছেন। এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় তো দূরে নয়। যিনি লিডার অব দ্যা হাউজ হবেন, তিনি এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন। নতুন প্রধানমন্ত্রী, নতুন লিডার অব দ্যা হাউজ পরিস্থিতি, বাস্তবতা, করণীয়… অবশ্যই সিদ্ধান্ত নিবেন। কাদের নিয়ে বিরোধী দল করা হবে এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, পদ্ধতিটা আমি কেন আপনাকে বলবো? এটা নতুন সরকার বসুক। সংশ্লিষ্ট যারা আছে তাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বৈঠক করবেন। বাস্তবতার নিরিখে সিদ্ধান্ত নেবেন। স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ব্যাপারে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জনগণের প্রতিনিধি, তারা নির্বাচিত। এই নির্বাচিত সদস্য হিসেবেই সংসদে বসবেন তাদের ভূমিকা পালন করবেন। এ ছাড়া অন্য কিছু এই মুহূর্তে ভাববার অবকাশ নেই। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ২৯৯ এর মধ্যে ২২৩ একা একটা রাজনৈতিক দল জিতেছে। সেখানে স্বতন্ত্র প্রার্থী কতজন? অনেকেই মন্তব্য করেছিলেন, আওয়ামী লীগের চেয়ে স্বতন্ত্রই জিতবে বেশি। আওয়ামী লীগ আওয়ামী লীগই। ২২৩ জন রুলিং পার্টি থেকে জেতা এটা তো একটা পজিটিভ বাস্তবতা। বিদেশি সাংবাদিক ও পর্যবেক্ষকদের নিয়ে তিনি বলেন, এটা স্বীকৃতির জন্য নয়। আমাদের ইলেকশনটা কেমন হয়- আন্তর্জাতিক বিশ্ব জানতে চায়। আমরা বলেছি, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হবে। স্বাধীন নির্বাচন কমিশন ইলেকশন কন্ডাক্ট করবে। আমাদের এই কথার সঙ্গে কাজের মিল আছে কি নাস গণতান্ত্রিক বিশ্ব সেটা প্রত্যক্ষ করুক- সেজন্য আমরা এটা করেছি। নির্বাচন নিয়ে করা বিএনপির মন্তব্য নজরে আনলে ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশি-বিদেশি সাংবাদিক, পর্যবেক্ষক সবাই নির্বাচন দেখেছেন, প্রত্যক্ষ করেছেন এবং নিজেদের আপনাদের বিবেক আছে। পরিস্থিতি বোঝার ক্ষমতা আছে, নির্বাচনটা কেমন হয়েছে। বিএনপি-জামায়াতের তীব্র বিরোধিতা ও নির্বাচনবিরোধী সন্ত্রাসী কর্মকা- এর মধ্যেও কতটা শান্তিপূর্ণ, সুষ্ঠু ও অবাধ হয়েছে; সেটা আপনারা নিজেরাই প্রত্যক্ষ করেছেন। যা সত্য তা সব কিছুই আপনারা জানেন। আর যা কিছু মিথ্যাচার আপনারা দেখছেন। এখনও তার মিথ্যাচার করে বেড়াচ্ছেন। জনগণের রায়কে অস্বীকার করে তাদের সন্ত্রাসী কর্মকা- পরিচালনার হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। আমরা যে কোনো মূল্যে সব ধরনের সহিংসতা, সন্ত্রাসী কর্মকা-কে প্রতিহত করতে, পরাজিত করতে বদ্ধ পরিকর। বিএনপির আন্দোলন নিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি কী বলেছে, সেটার উপর তো দেশ চলে না। বিএনপি যেটা বলেছে- সে অনুযায়ী তাদের আন্দোলন করে সরকার হটানো… এটা তো তারা পারেনি করতে। এই নির্বাচনকে হতে দেওয়া যাবে না- এই কথাও তারা বলেছে। নির্বাচন শুধু হতে দেওয়া নয়, নির্বাচন হতে দেবে না, প্রতিহত করবে সবই তো বলেছে, কোনটা সত্য হলো? বলুন? এ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, সুজিত রায় নন্দী, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য সাঈদ খোকন প্রমুখ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো নিউজ
https://slotbet.online/